সোমবার   ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯   ভাদ্র ৩১ ১৪২৬   ১৬ মুহররম ১৪৪১

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
আ. লীগের সম্পাদকমণ্ডলীর সভা ১৮ সেপ্টেম্বর বরিশাল নগরীতে আসছে স্মার্ট এলইডি লাইটিং বঙ্গবন্ধুর নাতনি টিউলিপের জন্মদিন আজ আজ থেকে ট্রাকে পেঁয়াজ বিক্রি করবে টিসিবি বিশ্ব ওজন দিবস আজ শিগগিরই বন্দর-ট্রেনে যুক্ত হচ্ছে ত্রিপুরা-বাংলাদেশ দিল্লিতে শেখ হাসিনা-মোদি বৈঠক ৫ অক্টোবর সারাদেশে ৭৫ প্রতিষ্ঠানকে পাঁচ লক্ষাধিক টাকা জরিমানা প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগের ফল প্রকাশ এ পি জে আব্দুল কালাম স্মৃতি পুরস্কারে ভূষিত শেখ হাসিনা টস হেরে ফিল্ডিংয়ে বাংলাদেশ বরিশালকে যানজট মুক্ত রাখতে কাজ করছে ট্রাফিক সদস্যরা- ডিসি ট্রাফিক সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করুন : প্রধানমন্ত্রী বরিশালে কাজী নজরুল ইসলামের ৪৩তম প্রয়াণ বার্ষিকী অনুষ্ঠিত রাজশাহীর পুলিশ একাডেমিতে কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী গণপরিবহনে মাসিক বেতনে চালক নিয়োগের নির্দেশ হাইকোর্টের সারদার পথে প্রধানমন্ত্রী হাজিদের দেশে ফেরার শেষ ফ্লাইট আজ আন্তর্জাতিক গণতন্ত্র দিবস আজ শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ইনস্টিটিউটের কার্যক্রম আজ শুরু
২৪৭৫

ছেলেধরা নয়, বলাৎকারের পর শিশুর মাথা কেটে ফেলে রবিন

প্রকাশিত: ২৪ জুলাই ২০১৯  

নেত্রকোনায় শিশু সজীবকে বলাৎকারের পর গলা কেটে হত্যা করে রবিন। প্রতিবেশীর ছেলে সজীবকে ফুসলিয়ে নির্মাণাধীন ভবনের তিনতলার একটি কক্ষে নিয়ে বলাৎকার করা হয়। পরে ভয় ও আতঙ্কে গলা কেটে হত্যা করে।

শিশু সজীবের ময়নাতদন্ত প্রতিবেদনে এসব তথ্য পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছেন ময়মনসিংহ রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি আক্কাস উদ্দিন ভূঁইয়া। নেত্রকোনা পুলিশ সুপার কার্যালয়ে বুধবার দুপুরে মতবিনিময় সভায় এসব তথ্য জানান তিনি।

এদিকে আজ বুধবার বেলা ১১টার দিকে পুলিশ সদর দপ্তরের মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী বলেন, ‘সজীব নামের যে শিশুটি মারা গেছে, মৃত্যুর আগে রবিন তাকে বলাৎকার করেছিল। যার প্রমাণ পেয়েছি সুরহতাল এবং ময়নাতদন্তে।’

আইজিপি বলেন, ‘ঘটনার পারিপার্শ্বিক অবস্থা বিশ্লেষণ করে আমরা বলতে পারি, বলাৎকারের পরিপ্রেক্ষিতে শিশুটি হয়তো প্রতিরোধ করতে চেয়েছিল, তাই তাকে গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে। অথবা যেহেতু পরিচিত পরিবার ছিল দুজনের। শিশুটি ঘটনাটি তার পরিবারকে জানিয়ে দেবে, সেই চিন্তা থেকেও তাকে হত্যা করা হতে পারে।’

জাবেদ পাটোয়ারী বলেন, ‘রবিন মাদকাসক্ত ছিল। মাদকাসক্তের কারণে ২০১৭ ও ২০১৮ সালে নিরাময় কেন্দ্রে চিকিৎসাধীন ছিল। অপরাধী কর্মকাণ্ডের জন্য ঘটনার কিছুদিন আগে পুলিশ তাকে আটকও করেছিল। এই মাদকাসক্তের কারণেই সে তার স্ত্রীকে নির্যাতন করত। শুধু তাই নয়, একসময় ব্লেড নিয়ে সে তার স্ত্রীরও গলা কাটার চেষ্টা করেছিল। এ জন্য স্ত্রী তাকে ছেড়ে চলে যায়।’ এই রবিনের কারণেই তার বাবা সম্পত্তিগুলো বিক্রি করতে বাধ্য হয়েছিলেন বলেও জানান জাবেদ পাটোয়ারী।

এর আগে ১৮ জুলাই বৃহস্পতিবার দুপুর ১টার দিকে নেত্রকোনা শহরের কাটলী এলাকা দিয়ে রবিন হাতে ব্যাগ নিয়ে দৌড়াচ্ছিল। এলাকায় তাকে নতুন মনে করে স্থানীয় লোকজন তার নাম-পরিচয় জানতে চান। রবিন আমতা আমতা করতে থাকলে লোকজন জিজ্ঞাসা করেন, তার ব্যাগের ভেতরে কী আছে? রবিন বলে, তার ব্যাগের ভেতরে ভাঙাড়ির জিনিস আছে। তাকে সন্দেহ হলে ওই ব্যাগটি দেখতে চান স্থানীয়রা। কিন্তু সে ব্যাগটি না দেখাতে চাইলে স্থানীয়রা ব্যাগ নিয়ে টানাহেঁচড়া করতে থাকে। একপর্যায়ে ব্যাগের ভেতর থেকে শিশুর কাটা মাথা ছিটকে পড়ে।

এর পরই রবিনকে ধাওয়া দেয় লোকজন। একপর্যায়ে শহরের নিউটাউন এলাকার অনন্ত পুকুরপাড়ে তাকে পিটুনি দেন এলাকাবাসী। এতে ঘটনাস্থলেই রবিনের মৃত্যু হয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে সজীবের কাটা মাথা ও রবিনের লাশ উদ্ধার করে নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে পাঠায়। বিকেলে কাটলী এলাকায় নির্মাণাধীন তিনতলা একটি ভবনের নিচতলা থেকে শিশু সজীবের বাকি দেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

নিহত রবিন (২২) পেশায় রিকশাচালক ছিল। সে নেত্রকোনা পৌর শহরের কাটলী এলাকার একলাছ উদ্দিনের ছেলে। অন্যদিকে নিহত সজীবের পরিবারও একই এলাকার একটি বাসায় ভাড়া থাকে। সে আরেক রিকশাচালক রইছ উদ্দিনের ছেলে। রইছের গ্রামের বাড়ি জেলার বারহাট্টা উপজেলার সাহতা গ্রামে।

এই বিভাগের আরো খবর