রোববার   ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ৩০ ১৪২৬   ১৭ রবিউস সানি ১৪৪১

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
হঠাৎ পড়ে গেলেন মোদী সিটি ভোটে চূড়ান্ত প্রস্তুতি ইসির অতীতের যেকোনো সময়ের চেয়ে আওয়ামী লীগ এখন শক্তিশালী : ভূমিমন্ত্রী মেজাজ হারিয়ে দুই ঘণ্টায় ১২৩ টুইট করে ট্রাম্পের নতুন রেকর্ড! বিজয় দিবসে আসছে সাবিনা ইয়াসমিনের গান নারীর ক্ষমতায়নে বিস্ময়কর রেকর্ড হাত থেকে কোরআন পড়ে গেলে করণীয় সানিয়া মির্জার বোনের বিয়েতে বসেছিল চাঁদের হাট! বিএনপির ঘাড়ে ভর করেছে বুদ্ধিজীবী হত্যাকারীদের প্রেতাত্মা ‘বোরকা পরে বাংলাদেশ থেকে এসেছি’ বিজেপি এমপির টুইটে ভারতে তোলপাড় বন্দে আলী মিয়ার জন্ম ‘২ ঘণ্টার মধ্যে উড়ে যাবে সালমান খানের গ্যালাক্সি অ্যাপার্টমেন্ট!’ গরুর খামারে কম্বল দান করলেই মিলবে বন্দুকের লাইসেন্স! আজ প্রকাশ হবে রাজাকারদের তালিকা সোশ্যাল মিডিয়া বিশেষজ্ঞ খুঁজছেন ব্রিটেনের রানি শামীমের ৩৬৫ কোটি টাকা, খালেদের ৩৪, সম্রাটের ‘তেমন নেই’ মাকাসিদুশ শরিয়া তত্ত্বের প্রয়োগ ও অপপ্রয়োগ লড়েছেন মোসাদ্দেক, জিতেছে ঢাকা প্রজন্ম থেকে প্রজন্মকে সচেতন থাকতে হবে: প্রধানমন্ত্রী মোশতাক, জিয়ার মতো মীরজাফররা আর যেন ক্ষমতায় না আসে-প্রধানমন্ত্রী
২৪

গ্যাস বিক্রির মুচলেকা দিয়ে ক্ষমতায় এসেছিল বিএনপি: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত: ৯ অক্টোবর ২০১৯  

ভারতে এলপিজি (তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাস) রফতানি সংক্রান্ত চুক্তি নিয়ে সমালোচনার বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘আজ যারা বলছে গ্যাস বিক্রি করে দিচ্ছে, তারাই কিন্তু গ্যাস বিক্রির মুচলেকা দিয়ে ২০০১ সালে ক্ষমতায় এসেছিল। আমরা সবসময় আমাদের নিজেদের দেশের স্বার্থটাই দেখছি। আমরা এলপিজি উৎপাদন করি না, আমরা আমদানি করা গ্যাস থেকে তাদের দিচ্ছি।’

আজ বুধবার (৯ অক্টোবর) বিকাল সাড়ে ৩টায় গণভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রীর সাম্প্রতিক ভারত ও যুক্তরাষ্ট্র সফর নিয়ে এই সংবাদ সম্মেলন ডাকা হয়।

গ্যাস রফতানি ও পানিবণ্টনে বাংলাদেশের স্বার্থ কতটা রক্ষা পেয়েছে এই প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা এলপিজি উৎপাদন করি না। তেল উৎপাদনের সময় গ্যাস ও অন্যান্য বাইপ্রোডাক্ট উঠে আসে। এর থেকে অল্প কিছু এলপিজি উৎপাদিত হয়। আগে দুইটা বেসরকারি ও একটা সরকারি কোম্পানি এটা করতো। তবে আমরা মূলত এলপিজি আমদানি করি। এখন আমাদের বাংলাদেশে প্রায় ২৬টি কোম্পানি এলপিজি বোতলজাত করছে, ১৮টি কোম্পানি উৎপাদন করছে। আমরা যে গ্যাস ত্রিপুরায় দিচ্ছি সেটা বটল গ্যাস (বোতলজাত গ্যাস)।’

তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশের কোনও স্বার্থ শেখ হাসিনা বিক্রি করবে এটা কোনও দিন হতে পারে না, এটা সবার জানা উচিত। আমরা ভারতের কাছ থেকে ১৬০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ কিনছি। ৫০০ মেগাওয়াট কেনার কথা ছিল, কিন্তু আমাদের অতটা লাগবে না। আমরা সবসময় আমাদের নিজেদের দেশের স্বার্থটাই দেখছি। ১৯৭১ সালের কথা মনে রাখবেন। আমাদের দেশের মানুষ নির্যাতিত হয়ে ত্রিপুরায় আশ্রয় নিয়েছিল, সেখানে আমাদের মুক্তিযোদ্ধাদের ট্রেনিং সেন্টার ছিল। আমরা আমদানি করা গ্যাস থেকেই তাদের দিচ্ছি।’

এই বিভাগের আরো খবর