শুক্রবার   ১৭ জানুয়ারি ২০২০   মাঘ ৪ ১৪২৬   ২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
আদালতে মজনুর স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সাউন্ড সিস্টেমে জাতীয় সংগীত পরিবেশন করা যাবে ১ ফেব্রুয়ারি থেকে এসএসসি শুরু ১৫তম শিক্ষক নিবন্ধনে উত্তীর্ণদের সনদ ১৯ জানুয়ারি প্রথম আলোর সম্পাদকসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা ২৫ জানুয়ারি থেকে এক মাস কোচিং সেন্টার বন্ধ আমরা ক্রসফায়ারকে সাপোর্ট করতে পারি না : ওবায়দুল কাদের পোশাক রপ্তানিকে ছাড়িয়ে যাবে আইসিটি : জয় বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব শুরু কাল বিশ্ব ইজতেমার ২য় পর্বে ময়দানে আসতে শুরু করেছেন মুসল্লিরা অন্ধকার ভেদ করে আলোর পথে বাংলাদেশ: সংসদে প্রধানমন্ত্রী রিফাত হত্যা : দুই আসামি জামিনে মুক্ত মেয়র সাদিকের নাম ভাঙ্গিয়ে চাঁদাবাজি করে র‌্যাবের জালে ২ প্রতারক দুর্নীতি মামলা : বিএনপি প্রার্থী ইশরাকের বিচার শুরু বরিশালে সড়কের জায়গায় অনুমোদনহীন ভবন উচ্ছেদে বিসিসি কাদেরের বাইপাস পরবর্তী স্বাস্থ্যের উন্নতি, দেশে ফিরছেন রাতেই  এসডিজি অর্জনে বাংলাদেশ সঠিক পথে রয়েছে : প্রধানমন্ত্রী আবুধাবি থেকে দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী সরকারের জনপ্রিয়তা অনেক বেড়েছে: আইআরআই ওমানের সুলতানের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোকবার্তা
১০১

গৃহকর্মীর বিজনেস কার্ড ভাইরাল, থামছে না চাকরির অফার

প্রকাশিত: ৮ নভেম্বর ২০১৯  

 


আজকাল বাসা-বাড়ির কাজ করতে গৃহকর্মী খুঁজে পাওয়া বেশ কঠিন। সবখানেই প্রচুর চাহিদা তাদের। তবে, কষ্টসাধ্য এই পেশায় চাকরি হারানোর ঝুঁকিও রয়েছে যথেষ্ট। কোনো কারণে মনিবের মনোক্ষুণ্ন হলেই মুহূর্তেই চাকরি শেষ! এমন বিপদে পড়েই সম্প্রতি বিজনেস কার্ড ছাড়া হয়েছিল এক গৃহকর্মীর। সঙ্গে সঙ্গে ভাইরাল হয়ে যায় সেটি। এরপর থেকে নতুন চাকরির অফার যেন থামছেই না। দেশের দূর-দূরান্ত থেকে ডাক আসছে তাদের বাসায় কাজ করে দেওয়ার জন্য।

সম্প্রতি এ ঘটনা ঘটেছে পাশের দেশ ভারতে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি জানায়, ধনশ্রী শিনদে নামে এক নারী একদিন অফিস থেকে বাসায় ফিরে দেখেন গৃহকর্মী, যাকে তিনি গীতা মাসি বলে ডাকেন, তাকে খুব বিষণ্ন দেখাচ্ছে। কারণ, কিছুক্ষণ আগেই একটি চাকরি হারিয়েছেন তিনি। অর্থাৎ দরিদ্র এ গৃহকর্মীর মাসিক আয় হঠাৎ করেই চার হাজার রুপি কমে গেছে।

গীতাকে এই বিপদ থেকে উদ্ধারে নামেন একটি ডেভেলপার কোম্পানির সিনিয়র ম্যানেজার হিসেবে কর্মরত ধনশ্রী। নিজের বুদ্ধি-অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে ওই গৃহকর্মীর জন্য তৈরি করেন চমৎকার একটি বিজনেস কার্ড। ওই কার্ডে গীতার ফোন নাম্বারসহ উল্লেখ করা হয় বিভিন্ন কাজের জন্য বিভিন্ন পরিমাণ অর্থের কথা। যেমন- ঘর ঝাড়ু দিতে ৮০০ রুপি, কাপড় ধুতে ৮০০ রুপি, রুটি বানাতে হলে এক হাজার রুপি প্রভৃতি।

প্রাথমিকভাবে এমন একশ’ বিজনেস কার্ড ছাপিয়ে বিলি করা হয় এলাকার বিভিন্ন বাসা-বাড়িতে। কিন্তু, ছোট্ট এই পরিকল্পনা যে এত বড় ঝড় তুলবে এটা আশা করেননি ধনশ্রী বা গীতা মাসি কেউই। তাদের এই ঘটনার বিবরণ বৃহস্পতিবার (৭ নভেম্বর) সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে শেয়ার করেন অস্মিতা জাভাদেকর নামে এক নারী। মুহূর্তেই ভাইরাল হয়ে যায় ওই বিজনেস কার্ডের ছবি।

অস্মিতা জানান, এরপর থেকে গীতা মাসির মোবাইল ফোন অনবরত বেজে চলেছে। ভারতের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে তার কাছে চাকরির অফার আসছে।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে অনেকেই ধনশ্রীর এমন অভিনব আইডিয়ার প্রশংসা করেছেন। ছোট কিন্তু কার্যকর পদক্ষেপের মাধ্যমে একজন দরিদ্র নারীর বিপদ দূর করায় অসংখ্য মানুষ ধন্যবাদ জানিয়েছেন তাকে।