বৃহস্পতিবার   ১৭ অক্টোবর ২০১৯   কার্তিক ১ ১৪২৬   ১৭ সফর ১৪৪১

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
কমছে রাতের তাপমাত্রা, প্রকৃতিতে শীতের আগমনী বার্তা কিশোরকে পিটিয়ে হত্যা এসআই আকরামসহ ১১ জন জেলহাজতে মানবতাবাদী নাট্যকার আর্থার মিলারের জন্ম মুখের কথায় চলে সাইদের ‘আশ্চর্য মোটরসাইকেল’ বরিশালে জাল-ইলিশসহ ২২জেলে আটক নীলনদের তীরে মিললো ‘গুরুত্বপূর্ণ’ প্রাচীন কফিন পর্দা নামলো ডিজিটাল ডিভাইস অ্যান্ড এক্সপোর কুষ্টিয়ায় শুরু হলো তিনদিন ব্যাপী লালনমেলা বাংলাদেশই বিশ্বসেরা, প্রবৃদ্ধি হবে ৭.৮ শতাংশ হাজার কোটি টাকার চেকের কপি প্রতারক চক্রের বাসায়! ৯ কর্মীকে তলব, একজনের বিদেশযাত্রায় নিষেধাজ্ঞা বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাৎ ইন্দোনেশিয়া থেকে সরাসরি পণ্য আমদানির সুযোগ চায় বাংলাদেশ পার্বত্য জেলায় সন্ত্রাস-মাদক নির্মূল করা হবে-স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বাকেরগঞ্জে এনএসআই পরিচয়ে চাঁদাবাজি আটক-২ সাবেক সহকারী কর কমিশনারকে গ্রেপ্তার করল দুদক র‌্যাগিংয়ের অভিযোগ পেলেই শাস্তি: আইনমন্ত্রী একাদশ সংসদের পঞ্চম অধিবেশন শুরু ৭ নভেম্বর যেখানে দুর্নীতি-টেন্ডারবাজি সেখানে অভিযান- স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ন্যাম সম্মেলনে যোগ দিতে বাকু যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী
৩৮

ক্যাসিনো ইস্যুতে বহিষ্কৃত হচ্ছেন মির্জা ফখরুলসহ একাধিক নেতা

প্রকাশিত: ৬ অক্টোবর ২০১৯  

ক্যাসিনো ও দুর্নীতিবিরোধী অভিযানের নেপথ্যের কারিগর হিসেবে বিএনপি নেতাদের নাম উঠে আসায় বিব্রত হয়ে পড়েছেন দলটির নীতিনির্ধারকরা। যার কারণে বিএনপির সম্মান রক্ষার্থে ক্যাসিনো কেলেঙ্কারির সাথে জড়িত একাধিক সিনিয়র নেতাকে দল থেকে বের করে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে, এমন গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়েছে রাজনীতিতে।

জানা গেছে, ক্যাসিনো ব্যবসা থেকে সব চেয়ে বেশি টাকা পেতেন মির্জা ফখরুলপন্থী নেতারা। আর এই কারণে শুদ্ধি অভিযানের অংশ হিসেবে বলির পাঠা হতে হচ্ছে মির্জা ফখরুলপন্থীরা।

এ প্রসঙ্গে মির্জা ফখরুলপন্থী এক নেতা বলেন, ক্যাসিনোর টাকার ভাগ সবাই পেলেও অযথা আমাদের টার্গেট করে দল থেকে বের করে দেয়ার পাঁয়তারা করছে একটি স্বার্থান্বেষী মহল। আমরা এর তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি। আমি বা আমার কোনো নেতাকর্মী এই ক্যাসিনো কেলেঙ্কারির সঙ্গে জড়িত নয়।

তথ্যসূত্রের বরাতে জানা গেছে, মূলত বাংলাদেশের ৬০ টি ক্যাসিনো থেকে যে পরিমাণ টাকা লন্ডনে যেতো সেই টাকার একটি ভাগ মির্জা ফখরুলপন্থী নেতারা চাওয়ার কারণে শুদ্ধি অভিযানের নামে তাদের দল থেকে ছাঁটাই করার অপচেষ্টা করছে একটি মহল।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, অনেকেই বলছেন-তারেক রহমান বাংলাদেশের ক্যাসিনোগুলো থেকে টাকা উঠিয়ে টাকার পাহাড় গড়ছেন। এ কথা আংশিক সত্য হলেও পুরো সত্য হচ্ছে, মির্জা ফখরুল ভাইও ক্যাসিনোগুলো থেকে একটি বিরাট অংকের অর্থ পেতেন। কিন্তু মির্জা ফখরুলের সেই অর্থ থেকে তারেক রহমানকে কোনো টাকা পয়সা দেয়া হতো না। এই কারণেই হয়তো তারেক রহমান মনঃক্ষুণ্ণ হয়ে মির্জা ফখরুল ও তার অনুসারীদের দল থেকে বের করে দেয়ার চেষ্টা করছেন। যদিও আমি সেটা বিশ্বাস করি না। মির্জা ফখরুলকে বদনাম করতে এবং আগামী কাউন্সিলে মহাসচিবের পদ বাগিয়ে নিতে দলের কিছু পদ-লোভী নেতা তাকে নেতিবাচকভাবে তারেক রহমানের সামনে উপস্থাপন করছেন। যার কারণে মির্জা ফখরুল চাপে পড়েছেন।

বিষয়টিকে ভিন্নভাবে ব্যাখ্যা করে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ বলেন, ক্যাসিনো রাজনীতি নিয়ে বিব্রত অবস্থায় রয়েছে বিএনপি। এই বাণিজ্যে অনেক নেতার নাম চলে এসেছে, যা আমাদের কল্পনাতেও ছিলো না। বিএনপি ক্ষমতায় থাকাকালে আমাদের অনেক নেতা ক্যাসিনো থেকে টাকা পেত সেটা আমরা জানতাম। কিন্তু ক্ষমতায় না থেকেও টাকা পায় তা জেনে আশাহত হলাম। আমি আশা করছি, তারেক রহমান এর উপযুক্ত বিচার করবেন।

এই বিভাগের আরো খবর