বুধবার   ১৩ নভেম্বর ২০১৯   কার্তিক ২৮ ১৪২৬   ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
প্রধানমন্ত্রী ৭ বিদ্যুৎকেন্দ্র উদ্বোধন করবেন আজ নেপালের উন্নয়ন প্রকল্পে সহায়তা প্রদানে রাষ্ট্রপতির আশ্বাস পুরুষদের জন্য সিল্ক, লাল ও হলুদ কাপড় নিষিদ্ধ মঙ্গলবার জাতীয় সংসদে ২ বিল পাস নবায়নযোগ্য জ্বালানিতে বিদ্যুৎ উৎপাদনে গুরুত্ব সরকারের র‌্যাবের অভিযানে জঙ্গি সংগঠন `আল্লাহর দল`র সদস্য গ্রেফতার এবার মোবাইল ব্যাংকিংয়ে দেওয়া যাবে আয়কর কেবল ওমানি ছাড়া বাংলাদেশ-ওমান ম্যাচ দেখতে টিকেট লাগবে সবার: ওএফএ বৈশ্বিক সমস্যা সমাধানে সংসদীয় কূটনীতি গুরুত্বপূর্ণ-স্পিকার বন্দরে ঘুষ, অনিয়মসহ ৫২ অভিযোগ দুদকের শুনানিতে ১৫ মেডিকেল কলেজের ১৬৫ শিক্ষার্থীর স্কিল স্কুল এন্ড ওয়ার্কশপ সহজ শর্তে ঋণ বাড়াতে বিশ্বব্যাংকের কাছে আহ্বান ডায়াবেটিস জার্নি অ্যাপ চালু বিতর্কিতদের অপসারণ করা হবে: হানিফ বৈদেশিক মুদ্রার বিনিময় হার ‘ইন্দো প্যাসিফিকে চীন-যুক্তরাষ্ট্রের উদ্যোগ পরিপূরক’ প্রধান শিক্ষকের বেতন ১১তম গ্রেডে, একধাপ এগোলো সহকারীরা ‘রোহিঙ্গা হোস্টিংয়ে বাংলাদেশ সর্বোচ্চ বিবেচনার দাবিদার’ সম্রাট ও আরমানের বিরুদ্ধে অবৈধ সম্পদের অভিযোগে মামলা বরিশালে স্বেচ্ছাসেবী মহিলা সমিতির মাঝে ২৫ লাখ টাকার অনুদান
২৬৮

কোকা-কোলার গোপন কথা!

প্রকাশিত: ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮  

বর্তমান বিশ্বে প্রশ্নাতীতভাবে সবচেয়ে জনপ্রিয় কোমল পানীয়র ব্র্যান্ডটি হলো কোকা-কোলা। পৃথিবীর এমন কোনো স্থান নেই যেখানে এই কোমল পানীয়টির অস্তিত্ব নেই! দ্য কোকা কোলা কোম্পানি প্রতিষ্ঠিত হয় আজ থেকে ১৩২ বছর আগে, ১৮৮৬ সালে। শুরুতে কোম্পানিটির পেটেন্ট করা হয়েছিল ঔষধ প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান হিসেবে! এই সুপ্রাচীন কোমল পানীয়র ইতিহাসের পরতে পরতে লুকিয়ে আছে আরো অনেক গোপন ও আশ্চর্যজনক তথ্য। সেদিকেই চোখ বুলানো যাক!

১. ১৯০৫ সালের আগ পর্যন্ত কোকা-কোলাতে কোকেন ব্যবহার করা হতো। পরে অবশ্য জনস্বাস্থ্যের কথা চিন্তা করে এ কাজ থেকে সরে আসে কোকা-কোলা কোম্পানি।

২. শুরুর দিকে মাথা ব্যথা ও ভ্রমণ ক্লান্তি দূর করতে ঔষধ হিসেবে কোকা-কোলা সেবন করা হতো !

৩. কোকা-কোলা শব্দটি মূলত চাইনিজ। যার অর্থ, ' টু মেক মাউথ হ্যাপি'!

৪. এ পর্যন্ত যত বোতল কোকা-কোলা প্রস্তুত করা হয়েছে সবগুলো তার বোতলকে যদি পাশাপাশি বসানো হতো তবে পৃথিবী থেকে চাঁদের দূরত্ব পাড়ি দিয়েও আরো ১ হাজার ৬৭৭ মাইল দূরে পৌঁছানো সম্ভব হতো !

৫. মানুষের মৃত্যুর পর তার দাঁত শত শত বছর মাটির নিচে থেকেও অক্ষত থাকতে পারে। কিন্তু এই দাঁত মাত্র এক রাত কোকা-কোলায় ডুবিয়ে রাখলে নরম হওয়া শুরু করে, কোকা-কোলার ক্ষয়কারী ক্ষমতা এতই বেশি!

৬. রক্তের দাগ মুছতে কোকা-কোলার জুড়ি নেই! এ কারণেই যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন সড়ক দুর্ঘটনার পর রাস্তার ওপর পড়ে থাকা রক্তের দাগ মুছতে কোকা-কোলা ব্যবহার করা হয়।

৭. কাপড়ের তেল চিটচিটে দাগও সহজেই কোকা-কোলা ব্যাবহার করে তুলে ফেলা যায়। এজন্য প্রথমে কোকা-কোলা তারপর ডিটারজেন্ট ব্যবহার করে কাপড় ধুতে হয়।

৮. পি এইচ স্কেলে এক বোতল কোকাকোলার মান ২ দশমিক ৮, যা প্রচণ্ড এসিডিক। মানুষের একটি নখ কোকাকোলা পূর্ণ একটি বোতলে মাত্র ৪ দিন রাখলেই তা নিশ্চিহ্ন হয়ে যায়!

৯. ২০০৬ সালে কোকা-কোলা ব্ল্যাক নামের একটি ফ্লেভার বাজারে আসে। এটি ছিল মূলত কফি ফ্লেভারের। পরবর্তীতে ইংল্যান্ড ও কানাডাতেও কোকাকোলা ব্ল্যাক ছড়িয়ে পড়ে। কিন্তু মাত্র দুই বছর পর ২০০৮ সালে কোকা-কোলা কোম্পানি ব্ল্যাক এর উৎপাদন আনুষ্ঠানিকভাবে বন্ধ করে দেয়।

১০. আধুনিক সান্টা-ক্লজের প্রতিকৃতি তৈরিতেও কোকাকোলার অবদান অনেকখানি!

এই বিভাগের আরো খবর