• রোববার   ০৯ আগস্ট ২০২০ ||

  • শ্রাবণ ২৪ ১৪২৭

  • || ১৯ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
লাইসেন্স নবায়ন না করলেই বেসরকারি হাসপাতাল বন্ধ দেশে করোনায় আরও ৩২ মৃত্যু, শনাক্ত ২৬১১ কাল অনলাইনে শুরু একাদশের ভর্তি, যেভাবে আবেদন করবেন সুযোগ আছে, করোনা সংকটেও বিনিয়োগ আনতে হবে: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে জাপানের প্রধানমন্ত্রী আবের ফোন করোনায় আরও ৩৩ মৃত্যু, শনাক্ত ২৬৫৪ কামাল বেঁচে থাকলে সমাজকে অনেক কিছু দিতে পারতো: শেখ হাসিনা সাবেক সেনা কর্মকর্তা সিনহার মাকে প্রধানমন্ত্রীর ফোন করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ৫০ মৃত্যু, শনাক্ত ১৯১৮ করোনায় আরও ৪৮ মৃত্যু, শনাক্ত ২৬৯৫ ঈদ-বন্যা ঘিরে করোনা সংক্রমণের হার বাড়তে পারে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী ট্রাফিক পুলিশ বক্সে বিস্ফোরণ, ‘নব্য জেএমবির সদস্য’ আটক করোনায় আরও ৩৫ মৃত্যু, শনাক্ত ৩০০৯ ১২ কোটি টাকা আত্মসাত করে গ্রেফতার যমুনা ব্যাংকের ম্যানেজার থানায় বিস্ফোরণে জঙ্গি সংশ্লিষ্টতা নেই : পুলিশ ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্ত ২৯৬০, মৃত্যু ৩৫ হাতের তালু দিয়ে আকাশ ঢাকা যায় না: বিএনপিকে কাদের দেশে একদিনে ৩৭ মৃত্যু, আক্রান্ত ২৭৭২ সাবরিনার অবৈধ সম্পদ অনুসন্ধানে ৪ জনকে দুদকে জিজ্ঞাসাবাদ করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৫৪, শনাক্ত ২২৭৫
৮১

করোনা: নিলামে ৯৯ হাজার টাকায় বিক্রি নির্মলেন্দুর পাণ্ডুলিপি

বরিশাল প্রতিবেদন

প্রকাশিত: ৯ মে ২০২০  

‘আমি বলছি না ভালোবাসতেই হবে, আমি চাই/কেউ একজন আমার জন্য অপেক্ষা করুক...’ কবি নির্মলেন্দু গুণের জনপ্রিয় কবিতা ‘তোমার চোখ এত লাল কেন’ এর শুরুটা এমনই। এই কবিতার হাতে লেখা পাণ্ডুলিপি নিলামে তুলেছিলেন তিনি। যা বিক্রি হয়েছে ৯৯ হাজার টাকায়। এ টাকা করোনাদুর্গত মানুষদের সহায়তার জন্য খরচ করা হবে।


শুক্রবার (৮ মে) ফেসবুকে এক স্ট্যাটাসের মাধ্যমে নির্মলেন্দু গুণ নিজেই জানিয়েছেন এ তথ্য।

তিনি লিখেছেন-‘করোনাদুর্গত মানুষদের সাহায্য করার উদ্দেশ্যে একটি মানবিক ত্রাণ সংগঠন অনলাইনে নিলামে বিক্রি করার জন্য আমার কাছে আমার একটি হস্তলিখিত কবিতার পাণ্ডুলিপি চেয়েছিলো। প্রথমে আমি রাজি হইনি। ভেবেছিলাম যদি আমার কষ্ট করে কাগজের ওপর কলম দিয়ে লেখা কবিতাটি বিক্রি না হয়, কেউ যদি কবিতাটি কিনতে আগ্রহী না হয়? তবে তো আমার জন্য তা খুবই লজ্জার বিষয় হবে। আমি মেয়েকে বললাম, আমার কবিতা তো সাকিবের ব্যাট নয়। ওই সংগঠনের পক্ষ নিয়ে আমার কন্যা আমাকে বললো, তুমি দাও। বিক্রি না হলে না হবে। এখন তুমি যদি না দাও, তো নিলামে বিক্রি করে ফান্ড তৈরি করার জন্য উদ্যোগ গ্রহণকারীরা ভাববে, তুমি ওই সংগঠনের সঙ্গে সহযোগিতা করলে না। 
হ্যাঁ, তা ভাবতে পারে।’

‘এই ভেবে আমি অনেক কষ্ট করে মোটা কাগজের ওপর একটু মোটা শিসের কলম দিয়ে আমার একটি মাঝারি আকৃতির জনপ্রিয় কবিতা লিখে- কবিতাটির ছবি তুলে আমার মেয়ের কাছে পাঠিয়ে দিলাম। আমার মেয়ে দ্রুতই আমার হস্তলিখিত ওই কবিতার পাণ্ডুলিপির একটি ফটো-কপি উদ্যোক্তাদের কাছে ই-মেইলে পাঠিয়ে দিলো। ফেসবুকের চেয়ে ই-মেইলে ছবির রেজুলেশন ভালো হয়।’

কবি আরও লিখেন- ‘ঐ দিনই সমাজের বিভিন্ন সেলিব্রেটির কাছ থেকে পাওয়া সামগ্রীগুলো নিলামে তোলার শেষ দিন ছিলো। রাত বারোটার দিকে আমার কন্যা আমাকে ফোন করে বললো, বাবা তোমার কবিতাটির জন্য তুমি কতো টাকা আশা করেছিলে? আমি বললাম, এক লাখ টাকা। তাই? তুমি তো দেখছি খুবই দূরদর্শী। তোমার আশা তো প্রায়ই পূর্ণ হয়েছে। আমি বললাম, তবে প্রায়ই বলছো কেন? এক লাখ হয়নি? মেয়ে বললো না, তোমার কবিতাটি বিক্রি হয়েছে ৯৯ হাজার টাকায়। আমি খুব প্রাণ খুলে হাসলাম। বুঝলাম, যিনি কবিতাটি কিনেছেন, তার হয়তো ০ (শূন্য) সংখ্যাটি নিয়ে এলার্জি আছে। তাই ১ লাখের পরিবর্তে তিনি আমার কবিতাটির দাম হাঁকিয়েছেন ৯৯ হাজার টাকা। আমি জানতে চাইলাম- তোমার উদ্যোক্তা বন্ধুরা কি খুশি? মেয়ে বললো হ্যাঁ, ওরা খুব খুশিমনেই আমাকে এ খবরটা দিলো।’

স্ট্যাটাসের শেষে তিনি পাঠকের উদ্দেশ্যে লিখেছেন, ‘বাংলা কবিতার নিলাম কি এটাই প্রথম। PoemVein কী বলে?’

ইত্যাদি বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর