শুক্রবার   ০৩ এপ্রিল ২০২০   চৈত্র ২০ ১৪২৬   ০৯ শা'বান ১৪৪১

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
প্রতি উপজেলা থেকে নমুনা সংগ্রহ করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর আজ থেকে কঠোর অবস্থানে যাচ্ছে সেনাবাহিনী মানুষের পাশে না দাঁড়িয়ে সমালোচনা করছে বিএনপি : কাদের দেশে আক্রান্তদের মধ্যে এ পর্যন্ত ২৬ জন সুস্থ : স্বাস্থ্যমন্ত্রী সেনাবাহিনী কতদিন মাঠে থাকবে সরকার বিবেচনা করবে: সেনাপ্রধান ঘরে বসে পড়াশোনা করতে হবে, শিক্ষার্থীদের প্রধানমন্ত্রী করোনায় খাদ্য ঘাটতি হবে না : কৃষিমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সে বক্তব্য রাখ‌ছেন প্রধানমন্ত্রী আজ সকালে ৬৪ জেলার কর্মকর্তাদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর কনফারেন্স পিপিই যেন নষ্ট না হয়, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী করোনা মোকাবিলায় সরকার জনগণের পাশে আছে -প্রধানমন্ত্রী ছুটিতে কর্মস্থল ছাড়া যাবে না : সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন করোনা সংকটকালে জনগণের পাশে থাকবে আ.লীগ: কাদের আমি করোনায় আক্রান্ত হইনি : স্বাস্থ্যমন্ত্রী বাংলাদেশে ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত নেই : আইইডিসিআর পদ্মা সেতু‌তে বসলো ২৭তম স্প্যান, দৃশ্যমান হলো ৪ হাজার ৫০ মিটার করোনায় আক্রান্ত ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন সব পোশাক কারখানা বন্ধের নির্দেশ পবিত্র শবে বরাত ৯ এপ্রিল স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে জনসমাগম করবেন না: প্রধানমন্ত্রী
৬১

করোনা ইস্যু: জনসেবা ও জনসচেতনতায় দেখা নেই স্বেচ্ছাসেবক দলের

বরিশাল প্রতিবেদন

প্রকাশিত: ২৫ মার্চ ২০২০  

 


দেশের মানুষের অধিকার রক্ষা এবং যে কোনও দুর্যোগে জনগণকে স্বেচ্ছাসেবা দেওয়ার লক্ষ্য নিয়ে গঠিত হয়েছিল বিএনপির অঙ্গ সংগঠন জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দল। নামে স্বেচ্ছাসেবক দল হলেও বিএনপির এই অঙ্গসংগঠনটি দেশের দুর্যোগে কখনই সেভাবে কাজ করেনি বলে অভিযোগ রয়েছে। দেশে চলমান করোনা ইস্যুতে কোন রকম স্বেচ্ছাসেবা দেয়নি স্বেচ্ছাসেবক দল। যার কারণে স্বেচ্ছাসেবক দলের আদর্শগত অবস্থান নিয়ে নানা মহলে চলছে সমালোচনা।

জানা গেছে, মূল দলের তাঁবেদারিতে স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতারা এতোটাই ব্যস্ত যে তারা দেশের মানুষের বিপদ-আপদে পাশে থাকাকে কোনভাবেই গুরুত্ব দিচ্ছে না। যার কারণে করোনা ইস্যুতে এই সংগঠনকে দেখা যাচ্ছে না মাঠে। দেখা যায়নি মানুষকে সচেতন করতেও। সংগঠনটির গঠনতন্ত্রের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্যে প্রাকৃতিক দুর্যোগ, দৈব-দুর্বিপাকে বিপন্ন-আর্ত-মানবতার সেবা নিয়োজিত থাকার কথা বলা থাকলেও করোনা ইস্যুতে সংগঠনের একজন নেতাকর্মীকেও মাঠে দেখা যায়নি। এমতাবস্থায় স্বেচ্ছাসেবক দলের কার্যক্রম নিয়ে প্রশ্ন তোলাটাই সমীচীন বলেই মনে করছেন সংশ্লিষ্ট মহল।

তথ্যসূত্র বলছে, স্বেচ্ছাপ্রণোদিত হয়ে বিনা বেতনে যে ব্যক্তি সেবা দান করেন, তিনি স্বেচ্ছাসেবক। তবে স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতাদের সেদিকে আগ্রহ নেই। তাদের আগ্রহ রাজনৈতিক পরিচয় ব্যবহার করে পদ ও মনোনয়ন বাণিজ্য করা। সে কারণে দুর্যোগ বা দুর্ঘটনায় তাদের সেবা দিতে দেখা যায় না। তবে সংগঠনটির নেতাদের দাবি, তারা দলীয় কর্মসূচিতে সেবা দেন। জনগণের সেবা করতেও রাজি দলটির নেতারা। কিন্তু মূল দল বিএনপি থেকে তাদের জন্য কোনও আর্থিক বরাদ্দ নেই। ফলে চাইলেও অনেক ক্ষেত্রে স্বেচ্ছাসেবা দেওয়া সম্ভব হয় না। রাজনৈতিক সংগঠন হিসেবে তাদেরকে রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডকেই বেশি প্রাধান্য দিতে হয়। আবার এই রাজনৈতিক কারণেই অনেক কর্মসূচি দেওয়ার ইচ্ছা থাকলেও তা হয়ে ওঠে না। অবশ্য, করোনা ইস্যুতে বিএনপির পক্ষ থেকে যে সকল সচেতনমূলক লিফলেট দেয়া হয়েছে তাদের সেটা বিলি করতেও দেখা যায়নি।

স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদের ভূঁইয়া জুয়েল বলেন, আমরা মূল দল থেকে কোন আর্থিক অনুদান পাইনি, যার কারণে করোনাভাইরাস প্রতিরোধক কোন সরঞ্জাম বিতরণ করতে পারিনি। অনলাইনে করোনাভাইরাস নিয়ে স্বেচ্ছাসেবক দল কাজ করছে।

তবে খোঁজ নিয়ে দেখা গেছে, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে স্বেচ্ছাসেবক দলের দায়িত্বশীলদের যেসব অ্যাকাউন্ট পাওয়া গেছে, সেখানে তারা কখনো নিজেদের সংগঠন থেকে প্রচারণার কোনো লিফলেট বিতরণ করেননি। সচেতনমূলক অন্যের পোস্ট শুধু কপি কিংবা শেয়ার দিয়েছেন।

এই বিভাগের আরো খবর