• বুধবার   ০৮ এপ্রিল ২০২০ ||

  • চৈত্র ২৫ ১৪২৬

  • || ১৪ শা'বান ১৪৪১

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
নিয়োগ পেলেন নতুন আইজিপি বেনজীর, র‌্যাব মহাপরিচালক মামুন মাজেদের মৃত্যু পরোয়ানা জারি যারা সাহায্য চাইতে পারবে না তাদের তালিকা করতে বললেন প্রধানমন্ত্রী দেশে করোনায় আরও ৫ জনের মৃত্যু, আক্রান্ত বেড়ে ১৬৪ কারাগারে বঙ্গবন্ধুর পলাতক খুনি ক্যাপ্টেন মাজেদ বঙ্গবন্ধুর আত্মস্বীকৃত খুনি ক্যাপ্টেন মাজেদ আদালতে বঙ্গবন্ধু হত্যা: আত্মস্বীকৃত খুনি ক্যাপ্টেন মাজেদ গ্রেফতার চিকিৎসকরা কেন চিকিৎসা দেবে না, এটা খুব দুঃখজনক : প্রধানমন্ত্রী দীর্ঘদিন জেলখাটা আসামিদের মুক্তির নীতিমালা করার নির্দেশ রমজানে সরকারি অফিস ৯টা থেকে সাড়ে ৩টা প্রণোদনা প্যাকেজ বাস্তবায়ন হলে অর্থনীতি ঘুরে দাঁড়াবে: অর্থমন্ত্রী করোনা: ৭৩ হাজার কোটি টাকার আর্থিক সহায়তা প্যাকেজ ঘোষণা বেসরকারি হাসপাতাল চিকিৎসা না দিলেই ব্যবস্থা: স্বাস্থ্যমন্ত্রী প্রতি উপজেলা থেকে নমুনা সংগ্রহ করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর আজ থেকে কঠোর অবস্থানে যাচ্ছে সেনাবাহিনী মানুষের পাশে না দাঁড়িয়ে সমালোচনা করছে বিএনপি : কাদের দেশে আক্রান্তদের মধ্যে এ পর্যন্ত ২৬ জন সুস্থ : স্বাস্থ্যমন্ত্রী সেনাবাহিনী কতদিন মাঠে থাকবে সরকার বিবেচনা করবে: সেনাপ্রধান ঘরে বসে পড়াশোনা করতে হবে, শিক্ষার্থীদের প্রধানমন্ত্রী করোনায় খাদ্য ঘাটতি হবে না : কৃষিমন্ত্রী
৩৯

করোনার আশঙ্কায় মসজিদে যাওয়ায় নিষেধাজ্ঞা, ইসলাম কী বলে?

বরিশাল প্রতিবেদন

প্রকাশিত: ১৮ মার্চ ২০২০  

 

ইসলামের একটা মূলনীতি হলো, অন্যের ক্ষতি করা যাবে না। অন্যের ক্ষতি হতে পারে এমন কোনো কাজ করা যাবে না। তাই মহামারিতে আক্রান্ত ব্যক্তির জুমা ও জামাতে উপস্থিত হওয়া নিষিদ্ধ। নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন,

لَا يُورِدُ مُمْرِضٌ عَلَى مُصِحٍّ
‘অসুস্থ ব্যক্তিকে সুস্থ ব্যক্তির কাছে উপস্থিত করা যাবে না।’ [১]

ইমাম নববি (রহ.) বলেন, ‘কেননা এতে যদি আল্লাহর হুকুমে সুস্থ ব্যক্তি আক্রান্ত হয়, তাহলে সে তার তকদিরের প্রতি বিশ্বাস না করে ঐ ব্যক্তিকে দোষারোপ করবে, ফলে তার ঈমান নষ্ট হয়ে যাবে।’ [২]

রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম আরও বলেন,

 إِذَا سَمِعْتُمْ بِالطَّاعُونِ بِأَرْضٍ فَلَا تَدْخُلُوهَا وَإِذَا وَقَعَ بِأَرْضٍ وَأَنْتُمْ بِهَا فَلَا تَخْرُجُوا مِنْهَا

‘কোনো এলাকায় মহামারির সংবাদ শুনলে তোমরা সেখানে প্রবেশ করবে না। আর কোনো এলাকায় থাকা অবস্থায় যদি মহামারি শুরু হয়, তবে তোমরা সেখান থেকে পলায়নও করবে না।’[৩]

দ্বিতীয়ত
যে লোকের ব্যাপারে বিশেষজ্ঞরা সিদ্ধান্ত নিয়েছেন যে, তাকে আলাদা থাকতে হবে বা স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ যাদেরকে কোয়ারেন্টাইন করেছে তার ওপর ওয়াজিব হচ্ছে, এ সিদ্ধান্ত মেনে চলা, জামাত বর্জন করা এবং নিজস্ব ঠিকানা বা আবাসস্থলে ওই সালাতগুলো যথাসময়ে আদায় করা।

শারিদ বিন সুওয়াইদ সাকাফি (রা.) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন,

كَانَ فِي وَفْدِ ثَقِيفٍ رَجُلٌ مَجْذُومٌ فَأَرْسَلَ إِلَيْهِ النَّبِيُّ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ إِنَّا قَدْ بَايَعْنَاكَ فَارْجِعْ

সাকিফ গোত্রের লোকেরা ইসলাম গ্রহণ করার জন্য নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের নিকট বায়াত করতে এলো তখন তাদের মধ্যে এক ব্যক্তি ছিল কুষ্ঠ রোগে আক্রান্ত। তখন নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম তাকে তাঁর কাছে না ডেকে বরং লোক পাঠিয়ে জানিয়ে দিলেন যে, ‘আমি তোমার বায়াত নিয়ে নিয়েছি, অতএব তুমি ফিরে যাও।’ [৪]

গত ১৬/৭/১৪৪১ হি. সৌদি আরবের সর্বোচ্চ ওলামা পরিষদের (সৌদি কাউন্সিল অব সিনিয়র স্কলার্স) ২৪তম বিশেষ অধিবেশনে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া মহামারি করোনা ভাইরাস সংক্রমণের আশঙ্কাজনক অবস্থায় জুমা ও জামাতে অংশগ্রহণের ব্যাপারটি উপস্থাপিত হলে ইসলামি শরিয়তের দলিল-প্রমাণ, লক্ষ্য-উদ্দেশ্য, মূলনীতি এবং এ বিষয়ে ফকিহদের মতামত পর্যালোচনাপূর্বক উপরোক্ত সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। 

তথ্যসূত্র
১. সহিহ বুখারি : ৫৩২৮; সহিহ মুসলিম : ৪১১৭
২. শারহু মুসলিম : ৭/৩৭৩
৩. সহিহ বুখারি : ৫২৮৭; সহিহ মুসলিম : ৪১১১
৪. সহিহ মুসলিম : ৪১৩৮