বুধবার   ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আশ্বিন ২ ১৪২৬   ১৮ মুহররম ১৪৪১

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
আজ গাজীপুর যাবেন প্রধানমন্ত্রী পরিবেশ দূষণ: ৪ প্রতিষ্ঠানকে কোটি টাকা জরিমানা স্বর্ণজয়ী রোমান সানার মায়ের চিকিৎসার দায়িত্ব নিলেন প্রধানমন্ত্রী আরো দু’টি বোয়িং বিমান কেনার ইঙ্গিত দিলেন প্রধানমন্ত্রী কারাবন্দির তথ্য ডাটাবেজে থাকবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অপ্রতিরোধ্য গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে দেশ: প্রধানমন্ত্রী অত্যাধুনিক প্রযুক্তির ‘রাজহংস’ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী দুই মাসে এডিপি বাস্তবায়নের হার বেড়েছে ৪.৪৮ শতাংশ উদ্বোধনের দিনেই পদ্মাসেতুতে ট্রেন চলবে: রেলমন্ত্রী ৮ হাজার ৯৬৮ কোটি ৮ লাখ টাকার প্রকল্প একনেকে অনুমোদন ভারতীয় কোস্টগার্ড ডিজির সঙ্গে রীভা গাঙ্গুলির বৈঠক বরিশালে বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা গোল্ডকাপ টুর্নামেন্টের উদ্বোধন ইসির চুরি যাওয়া ল্যাপটপ উদ্ধার, আটক ৩ আজ মহান শিক্ষা দিবস প্রধানমন্ত্রী ‘রাজহংস’ উদ্বোধন করবেন আজ রোহিঙ্গা ভোটার: ইসি কর্মচারীসহ আটক ৩ রিফাত-মিন্নির নতুন ভিডিও, বেরিয়ে এলো চাঞ্চল্যকর তথ্য ‘বিজ্ঞান-প্রযুক্তির বিকাশ ছাড়া দেশ উন্নয়ন করা সম্ভব নয়’ রোহিঙ্গা ভোটার খতিয়ে দেখতে চট্টগ্রামে কবিতা খানম আগামী ১০মাসের রোডম্যাপ তৈরি ও তার বাস্তবায়ন করবো - জয় ও লেখক
১০

এডিস মশার লার্ভা ধ্বংসের নির্দেশনা সব মন্ত্রণালয়ে

প্রকাশিত: ২২ আগস্ট ২০১৯  

এ মুহূর্তে রাজধানীসহ সারা দেশে ছড়িয়ে পড়েছে ডেঙ্গুর ভয়াবহতা। আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা প্রায় ৬০ হাজারে পৌঁছেছে। সরকারি হিসাবেই মৃত্যুর সংখ্যা ৪৭-এ দাঁড়িয়েছে। তবে বেসরকারি হিসেবে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা আরও বেশি। বিদ্যমান পরিস্থিতিতে ডেঙ্গুর বাহক এডিস মশা নিধনে সরকারি সব দফতরে পরিচ্ছন্ন কার্যক্রম পরিচালনার নির্দেশনা দিয়েছে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়।

এরই পরিপ্রেক্ষিতে মশার লার্ভা জন্মানোর উপযোগী সব স্থান ধ্বংস এবং পরিত্যক্ত বস্তু অপসারণ করতে সব মন্ত্রণালয় ও বিভাগে চিঠি দিয়েছে স্থানীয় সরকার বিভাগ। পাশাপাশি এ বিষয়ে জনসচেতনতা বাড়াতে সব সিটি মেয়র, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, উপজেলা চেয়ারম্যান ও পৌরসভার মেয়রদের চিঠি দেয়া হয়েছে।

বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বলেন, ‘সরকারি-বেসরকারি সব অবকাঠামোতে জমাকৃত পানিতে এডিস মশার প্রজনন হয়ে থাকে।

তাই শুধু বেসরকারি ভবনের মালিকদের সচেতন হলেই হবে না। সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোতে যারা যেখানে দায়িত্ব পালন করেন তাদের সবাইকেই সচেতন হতে হবে। এ লক্ষ্য সামনে রেখেই এ ধরনের চিঠি বা পরিপত্র জারি করা হয়েছে।’

মন্ত্রণালয় ও বিভাগের সচিবদের কাছে দেয়া স্থানীয় সরকার বিভাগের চিঠিতে বলা হয়- প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে ডেঙ্গুসহ মশাবাহিত সব রোগ প্রতিরোধকল্পে ২৫ জুলাই থেকে দেশব্যাপী মশক নিধন ও পরিচ্ছন্ন কার্যক্রম চলমান রয়েছে। এর ধারাবাহিকতায় বিগত দিনগুলোতে মশার বিস্তাররোধ ও উৎপত্তিস্থল ধবংসের জন্য এ মন্ত্রণালয় থেকে নানা ধরনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

এমতাবস্থায় দেশব্যাপী ‘মশক নিধন ও পরিচ্ছন্ন কার্যক্রম’ এর সফল বাস্তবায়ন ও কাঙ্ক্ষিত সুফল পেতে আপনার মন্ত্রণালয় ও বিভাগের অধীন সব দফতর/সংস্থা/কার্যালয়ে পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম পরিচালনার পাশাপাশি মশার লার্ভা জন্মানোর উপযোগী সব উৎস ধ্বংস করা এবং পরিত্যক্ত বস্তু অপসারণের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য অনুরোধ করা হল।

এর দু’দিন আগে ১৮ আগস্ট মশক নিধন ও পরিচ্ছন্ন কার্যক্রম বিষয়ে জনসচেতনতামূলক প্রচার ব্যাপকভাবে অব্যাহত রাখতে সব সিটি কর্পোরেশনের মেয়র, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, উপজেলা চেয়ারম্যান ও পৌরসভার মেয়রদের চিঠি দেয় স্থানীয় সরকার বিভাগ। ওই চিঠিতে বলা হয়- ‘ডেঙ্গুসহ মশাবাহিত সব রোগ প্রতিরোধকল্পে দেশব্যাপী মশক নিধন ও পরিচ্ছন্ন কার্যক্রম চলমান রয়েছে।

উক্ত কার্যক্রমের সফল বাস্তবায়নের লক্ষ্যে মশার বংশ বিস্তার রোধ ও পরিচ্ছন্নতা নিশ্চিত করার জন্য জনসচেতনতামূলক প্রচার ব্যাপকভাবে অব্যাহত রাখার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সানুগ্রহ অনুশাসন প্রদান করেছেন। এমতাবস্থায় স্থানীয় সরকার বিভাগের আওতাধীন সকল দফতর/সংস্থা ও স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানসমূহের উদ্যোগে সচেতনতামূলক পোস্টার, লিফলেট, টিভিসি ইত্যাদি মিডিয়া উপকরণ ব্যাপকভাবে প্রচারের পাশাপাশি উপযুক্ত উদ্বুদ্ধকরণ কার্যক্রমের মাধ্যমে মশার বংশ বিস্তার রোধে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য অনুরোধ করা হল।’

বিশেষ করে সরকারি দফতরগুলোতে এর সুফল হতাশাজনক। বিষয়টি নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে তদারকি করা হচ্ছে। এরই পরিপ্রেক্ষিতে সব মন্ত্রণালয় ও স্থানীয় সরকারের প্রতিষ্ঠানগুলো চিঠি দেয়া হয়েছে।

এই বিভাগের আরো খবর