মঙ্গলবার   ২৮ জানুয়ারি ২০২০   মাঘ ১৪ ১৪২৬   ০২ জমাদিউস সানি ১৪৪১

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
ইসলামে শূকর নিষিদ্ধের বিষয়টি যেভাবে সমর্থন করে বিজ্ঞান আমেরিকা ও ইসরায়েলের কমান্ডাররাও পালানোর পথ খুঁজে পাবে না নেহা-আদিত্যর বিয়ে ১৪ ফেব্রুয়ারি সোয়া ৯ কোটি টাকা আত্মসাতে তিনজনের বিরুদ্ধে মামলা এবার বিএনপি ছাড়ছেন কোষাধ্যক্ষ সিনহা! নারীর নিরাপত্তায় ৪৮ হাজার এলইডি লাইট লাগানোর প্রতিশ্রুতি আতিকের নির্বাচনী কার্যালয়ে রাদওয়ান মুজিব সিদ্দিক হাতিরঝিল—বনশ্রী হয়ে চট্টগ্রাম রোডে মিলবে পৃথক চারলেন ব্যাংককের ইমিগ্রেশন হচ্ছে শাহ আমানত বিমানবন্দরেও মেহেন্দিগঞ্জে ড্রেজার মেশিন সহ দুজন আটক, কারাদন্ড চীনে আটকে পড়াদের দেশে ফেরাতে বিশেষ ফ্লাইট পাঠাবে সরকার গৌরনদীতে সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামী বাবুল গ্রেফতার বিশ্ববিদ্যালয় জ্ঞান অর্জনের স্থান, র‌্যাগিং করার নয়- রাষ্ট্রপতি বাংলাদেশ-পাকিস্তানের টি টোয়েন্টি ম্যাচ বৃষ্টিতে পরিত্যক্ত বরিশাল নগরীতে ৫৫০ পিস ইয়াবাসহ বিক্রেতা গ্রেপ্তার বরিশাল পুলিশের চার থানায় যুক্ত হল পরিদর্শক অপারেশন পদ ৬৬ বলে সেঞ্চুরি করলেন বরিশালের ইমান বরিশালে ইয়াবা বিক্রেতার ১০ বছরের কারাদণ্ড ক্যালিফোর্নিয়ায় হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় বাস্কেটবল তারকা নিহত হবিগঞ্জে বিশ্বের বড় কাঠবিড়াল
৪৪

আজ বাকেরগঞ্জ পাক হানাদার মুক্ত দিবস

বরিশাল প্রতিবেদন

প্রকাশিত: ৭ ডিসেম্বর ২০১৯  

বাকেরগঞ্জ প্রতিনিধি:

১৯৭১ সালের ৭ ডিসেম্বর পাক হানাদার মুক্ত করে বরিশালের বাকেরগঞ্জের আকাশে উড়ানো হয় স্বাধীনতার লাল সবুজ পতাকা। ঐদিন মুক্তিযোদ্ধাদের জয়বাংলা স্লোগানে প্রকম্পিত হয় বাকেরগঞ্জের মাটি, সমবেত আক্রমনে রাজাকার, আলবদর, আল সামস্, পুলিশ, ইপিআর সহ মোট ১৭জন নিহত হয় এবং বহু কুখ্যাত লোক মুক্তিযোদ্ধাদের হাতে বন্দি হয়। মহান মুক্তিযুদ্ধে বাকেরগঞ্জে প্রায় চার শতাধীক মানুষকে নির্মম ভাবে হত্যা করা হয় এবং বহু ঘর-বাড়ি পুড়িয়ে অনেক নারীর ইজ্জত হরণ করা হয়। তার মধ্যে কলসকাঠী ও শ্যামপুর ও গারুড়িয়া নরকীয় হত্যাজজ্ঞ চালানো হয়। মুক্তিযুদ্ধে নিরব স্বাক্ষী  ঐতিহাসিক কলসকাঠী সহ বিভিন্ন স্থান সমুহ মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি হিসেবে আগামী প্রজন্মের জন্য সংস্করণ করার দাবী জানিয়েছে বাকেরগঞ্জ বাসীর। 
 

এই বিভাগের আরো খবর