মঙ্গলবার   ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০   ফাল্গুন ৬ ১৪২৬   ২৩ জমাদিউস সানি ১৪৪১

বরিশাল প্রতিবেদন
ব্রেকিং:
আজ বাংলাদেশ-নেপাল পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বৈঠক সরকার-জনগণের মধ্যে সম্পর্ক জোরদার করতে সাংসদের রাষ্ট্রপতির আহ্বান দেশে রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা বিরাজ করছে : নাসিম ব্যাংকের জঙ্গি অর্থায়ন নজরদারিতে রয়েছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ৪০০ মেট্রিক টন মধু রফতানির অর্ডার পেয়েছে বাংলাদেশ : কৃষিমন্ত্রী নয় বছরে সাড়ে ৯৭ হাজার কর্মকর্তা নিয়োগ : জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী দেশে মোবাইল টাওয়ার রেডিয়েশনের মাত্রা ক্ষতিকর নয় : বিটিআরসি সন্ধ্যায় বঙ্গভবনে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী ২০ বছর পর আজ ঢাকায় আসছেন নেপালের পররাষ্ট্রমন্ত্রী খালেদার প্যারোলে মুক্তির কোনো আবেদন পাইনি: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী উহান ফেরত শিক্ষার্থীরা নজরদারিতেই থাকবেন : আইইডিসিআর রোহিঙ্গা ইস্যুতে ইন্দোনেশিয়ার সহায়তা চাইলেন ড. মোমেন ইউএনও’দের মাধ্যমে রাজাকারের তালিকা করা হবে : মোজাম্মেল হক মানবপাচারে অভিযুক্ত এমপির বিষয়ে দুদককে তদন্তের আহ্বান কাদেরের হত্যা মামলায় ৯ জনের যাবজ্জীবন বিশ্বকাপজয়ী ৬ ক্রিকেটারকে নিয়ে বিসিবি একাদশ ঘোষণা মশা মারার পর্যাপ্ত ঔষধ মজুত আছে : স্থানীয় সরকারমন্ত্রী রহমত আলীর মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শোক সাবেক মন্ত্রী অ্যাডভোকেট রহমত আলী আর নেই নিঃস্বার্থভাবে জনগণের কাজ করুন, নেতাকর্মীদের শেখ হাসিনা
১২১

অপরাধ দমনে আসছে ফেস রিকগনিশন ক্যামেরা-জুনাইদ আহমেদ পলক

বরিশাল প্রতিবেদন

প্রকাশিত: ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৯  


অপরাধ দমনে দেশের প্রতিটি শহরে ‘ফেস রিকগনিশন ক্যামেরা’ লাগানো হবে বলে জানিয়েছেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। 
মঙ্গলবার (১০ সেপ্টেম্বর) রাজশাহীতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব হাইটেক পার্কে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের বক্তব্যে এ কথা জানান তিনি। 

প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশক্রমে দেশের প্রতিটি শহরে ‘ফেস রিকগনিশন ক্যামেরা’ বসানো হবে। একশ’ ফেস রিকগনিশন ক্যামেরা যেন কমপক্ষে দুই হাজার পুলিশের কাজ করতে পারে- সে উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে। সম্ভাব্যতা যাচাই শেষে শিগগিরই এর কাজ শুরু হবে।

তিনি বলেন, রাজশাহী শহরে কেউ যেন যৌন হয়রানি বা সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের শিকার না হন, সে জন্য এখানেও ওই ক্যামেরা বসানো হবে। সাধারণ সিসি ক্যামেরার চেয়েও অনেক উন্নত প্রযুক্তির হওয়ায় এটি সহজেই অপরাধীকে শনাক্ত করে দেবে। ফেস রিকগনিশন ক্যামেরা বসালে সন্ত্রাসীরা অপরাধ করে নিস্তার পাবে না।  

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে রাজশাহীর মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, উন্নত রাজশাহীর একটি ছোট্ট সংস্করণ এ বঙ্গবন্ধু হাইটেক পার্ক। এখানে সরাসরি ১৪ হাজার তরুণ-তরুণীর কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা হবে। একসময় এ জায়গাটি এত সুন্দর ছিল না। হাইটেক পার্কের নির্মাণকাজ শুরু হওয়ায় পদ্মা নদীর তীরের এ জায়গাটি এরই মধ্যে দর্শনীয় হয়ে উঠতে শুরু করেছে। কাজ শেষ হলে বঙ্গবন্ধু হাইটেক পার্ক পদ্মাপাড়ের একটি অনন্য স্থাপনায় রূপ নেবে। 

এর আগে, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব হাইটেক পার্ক এলাকায় বিভিন্ন প্রজাতির এক হাজার বৃক্ষের চারা রোপণ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন  প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

রাজশাহীর বিভাগীয় কমিশনার নূর-উর-রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক মো. হামিদুল হক, রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার সুজায়েত ইসলাম প্রমুখ।

এই বিভাগের আরো খবর